ফুটবল দুনিয়াকে আশ্বস্ত করে শেষ আটে ব্রাজিল

0
639
সময়মতো জ্বলে উঠে মহানায়ক নেইমার

গড়াইনিউজ২৪.কম:: নাহ, এবার কোনো অঘটন নয়। ফুটবল দুনিয়াকে আশ্বস্ত করে শেষ আটে ব্রাজিল। আহ, নেইমার! সময় এখন তার। আসলেই তিনি সুপারস্টার। সামনে থেকে দলকে এগিয়ে নিলেন। নিজে গোল করলেন এবং গোল করালেন। মাঠে মাঝে মধ্যে একটু আধটু নাটক হয়তো করেন, কিন্তু সময়মত কাজের কাজটিও করেন সান্তোস নেইমার দ্য জুনিয়ার। রাশিয়ার সামারায় মেক্সিাকোকে ২-০ গোলে হারিয়ে দাপটে শেষ আটে ওঠে গেছে এই বিশ্বকাপের ফেবারিট ব্রাজিল, তাতে মহানায়ক নেইমারই। তার গোলেই এগিয়ে যায় ব্রাজিল। শেষ গোলটার উৎসও তিনি। নেইমারের দারুণ ক্রসে শেষ গোলটি করেন ফিরমিনো। অবশ্য মেক্সিকান আক্রমণ দিয়েই শুরু হয় ম্যাচ। ভালো শট নিয়েছিলেন আন্দেস গুয়ার্দাদো।তবে ব্রাজিলিয়ান গোলকিপার অ্যালিসন দ্রুততার সঙ্গে হাত দিয়ে বল সরিয়ে দেন, কর্নার পায় মেক্সিকো। এর একটু পরেই আক্রমণে যায় ব্রাজিল শট নিয়েছিলেন নেইমার। তবে সে শট সেভ করেন মেক্সিকান গোল কিপার। ২৫তম মিনিটে একজনকে কাটিয়ে বল নিয়ে বাঁ প্রান্ত দিয়ে বিপজ্জনকভাবে ডি বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন নেইমার।  বিপদ দেখে সামনে এগিয়ে এসেছিলেন মেক্সিকান গোলকিপার। ঝাপিয়ে পড়েন নেইমারের পায়ে। ফলে ঠিকঠাক শট নিতে পারেননি নেইমার। ভালো সুযোগ ছিল ব্রাজিলের। পরের মিনিটে ব্রাজিলের আরেকটি ভালো আক্রমণ সামাল দেয় মেক্সিকান রক্ষণভাগ।  ৩২তম মিনিটে ব্রাজিলের আরেকটি দুর্দান্ত আক্রমণ থেকে বেঁচে যায় মেক্সিকো। এবারও বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে যায় ব্রাজিল। তবে এবারও কাজের কাজ হয়নি। ৪০তম মিনিটে কুতিনহোর জোরালো শট সেভ করেন মেক্সিকোর গোল কিপার। প্রথমার্ধে বারবার আক্রমণ করেও গোলে বঞ্চিত ব্রাজিল। অবশেষে ৫oতম মিনিটে গোলের দেখা পায় তিতের দল। গোলদাতা আর কেউ নন, নেইমার। দারুণ ক্রস নিয়েছিলেন ইউলিয়ান। একটু সামনে এগিয়ে এসে শুয়ে পড়ে বল ধরার চেষ্টা করেও পারেননি মেক্সিকোর গোলকিপার। সেই সুযোগটা নিয়েছেন নেইমার। মাটি কাঁমড়ানো ক্রসে বসে পড়ে প্রথমে টোকা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন জেসুস। কিন্তু পারেননি।তবে পারলেন নেইমার।দ্রুত দৌড়ে এসে স্লাইড দিয়ে বল জালে পাঠিয়ে দেন নেইমার। বিলিয়ন ডলারের গোল। ১-০তে এগিয়ে যায় ব্রাজিল। ৬৪ মিনিটে ব্যবধান বাড়াতে পারত ব্রাজিল। কিন্তু মেক্সিকান গোলকিপারের দৃঢ়তায় ব্যবধান বাড়াতে পারেননি উইলিয়ানরা। ৮৮তম মিনিটে  ব্রাজিলকে আনন্দে ভাসান নেইমার- ফিরমিনো। বাঁ  দিক দিয়ে বল নিয়ে ডি বক্সে  খুব দ্রুত গতিতে ঢুকে গোলকিপারকে এড়িয়ে  আলতো ক্রস দেন একটু আগে কুতিনহোর জায়গায় খেলতে নামা ফিরমিনো। মোটেও ভুল করেননি তিনি। ক্ষিপ্রতার সঙ্গে প্লেসিং শটে গোল করে দলকে ২-০তে এগিয়ে দেন ফিরমিনো। ব্যস, ২-০ গোলের দারুণ জয়টা নিশ্চিত হয়ে যায় ব্রাজিলের।

একটি উত্তর ত্যাগ