যেনো আলাউদ্দিনের চেরাগ হাতে পেলেন দৌলতপুর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন ও চিলমারী ইউনিয়ন

0
22
গড়াইনিউজ২৪.কমঃ সারা জীবন মনে রেখো তোমরা অবহেলিত নও “আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশাহ এমপি মহোদয়”
তোমরা গর্বিত,আমরা দৌলতপুর বাসী গর্বিত আমাদের একজন সরওয়ার জাহান বাদশাহ আছেন।
যিনি কথা দিলে কথা রাখেন।ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি মাননীয় এমপি মহোদয়কে অসাধ্যকে সাধন করার জন্য।
 ২৫০ কিমি বিদ্যুৎ লাইন উদ্বোধন ।
অসম্ভব কে সম্ভব করেছেন কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব এ্যাডভোকেট আঃ কাঃ মঃ সরওয়ার জাহান বাদশাহ এমপি মহোদয় । ১৪ টি ইউনিয়ন নেয়েই আমাদের দৌলতপুর উপজেলা, আমরা দিনের বেলায় ঘুরতে বেরহোলেয় আমরা ১৪ টি ইউনিয়ন বেড়াতে পারি আর যখন সন্ধ্যা নেমে আসে সন্ধ্যার পরপরই মনে হয় যে আমাদের ১২ ইউনিয়ন ,আমাদের চোখের সামনে জ্বলজ্বল করে ভাসে আর দুইটা ইউনিয়ন যেন অন্ধকারে ঢেকে যায়, ২, টা ইউনিয়নে প্রায় ৬০ হাজার লোকের বসবাস ,এই দুই ইউনিয়নের মানুষ স্বপ্নেও ভাবেনি তাদেরও ইউনিয়ন দুইটা আধুনিকতা আসবে এবং দুর্গম পদ্মা নদীর মাঝখান দিয়ে বৈদ্যুতিক আলো প্রতিটা মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছাবে এবং যোগাযোগের রাস্তার পরিবেশ এত দ্রুত কাজ শুরু হয়ে যাবে,, আমরা দৌলতপুর উপজেলার সর্বস্তরের মানুষ ভাবতাম এটা অসম্ভব , সেই অসম্ভবকেই সম্ভব করে বুঝিয়ে দিলেন আমাদের বর্তমান এমপি মহোদয় তিনি যখনই বাড়িতে আসতেন তাহার নিজ ইউনিয়ন ফিলিপনগরে, তিনি এসে সন্ধ্যার সময় পদ্মা নদীর কিনারায় হাঁটতে যেতেন , তিনি চারিদিকে তাকিয়ে দেখতেন আমাদের রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন এবং চিলমারী ইউনিয়ন অন্ধকারে ঢেকে গেছে যেন পশ্চিম দিকে তাকালেই শুধু কালো অন্ধকারে ঢেকে থাকতো ,সেই অন্ধকারকে দূর করে তিনি প্রতিটা মানুষের ঘরে বৈদ্যুতিক আলো পৌঁছে দিয়েছেন এবং আরও বারোটা ইউনিয়নের মত তাদের যোগাযোগের যে রাস্তা সে রাস্তার কাজ অনেকটাই এগিয়েছে তারই প্রমাণ ভাগজোত বাজার থেকে বাংলা বাজারে রাস্তাটা ।