ঈশ্বরদীতে বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটির সভা অনুষ্ঠিত

0
828

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতা ॥ বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটি কেন্দ্রিয় নির্বাহী কমিটির সভা ঈশ্বরদী উপজেলার ছলিমপুর ইউনিয়নের চাঁদ আলী মোড়ের কেন্দ্রিয় অফিসে আজ রোববার দুপুরে অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সেরা এবং স্বনাম ধন্য কৃষকেরা এই সভায় অংশ নেন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেজর (অবঃ) সোলাইমান।  বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটির কেন্দ্রিয় সভাপতি সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃষক ছিদ্দিকুর রহমান কূল ময়েজ, বঙ্গবন্ধু জাতীয় মৎস্য পদক প্রাপ্ত কৃষক হাবিবুর রহমান মাছ হাবিব, বঙ্গবন্ধু জাতীয় পদক প্রাপ্ত কৃষক আমিরুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু জাতীয় পদক প্রাপ্ত কৃষক আকমল হোসেন, বঙ্গবন্ধু জাতীয় পদক প্রাপ্ত কৃষক তোফাজ্জল হোসেন, বঙ্গবন্ধু জাতীয় পদক প্রাপ্ত কৃষক মর্জিনা বেগম, বঙ্গবন্ধু জাতীয় পদক প্রাপ্ত কৃষক হাসান আলী, বঙ্গবন্ধু জাতীয় পদক প্রাপ্ত কৃষক পেয়ারা আতিক, বঙ্গবন্ধু জাতীয় পদক প্রাপ্ত কৃষক রনি মালিথা, জাতীয় কৃষক আব্দুল জলিল কিতাব মন্ডল, আব্দুল বারী ওরফে কপি বারী, আব্দুল কাদের ওরফে কলা কাদের, নিজাম উদ্দিন, কেন্দ্রিয় মহিলা বিষয়ক সম্পাদক কৃষাণী বেলী বেগম ও হাসিবুর রহমান বাঘা বিশ্বাস। সভা পরিচালনা করেন আলী শাহান।
বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের একমাত্র কৃষিই দেশকে এগিয়ে নিয়েছে। দেশে নতুন নতুন ফসলের চাষ বেড়েই চলেছে। তার পরেও এদেশের কৃষকেরা আজ অবহেলিত। রোদ-বৃষ্টিতে ভিজে মাঠে ফসল ফলানোর পর বাজারে তার সঠিক মূল্য পাওয়া যায়না। এতে কৃষকদের ব্যাপক ক্ষতি হয়। ফসলের সঠিক মূল্য না পাওয়াতে ইতোমধ্যে অনেক কৃষক পথে বসে গেছেন। তাদের খামার বন্ধ হয়ে গেছে। বাজারে মেয়াদ উর্ত্তীর্ণ সার অহরোহ বিক্রি হচ্ছে এ থেকে সকল কৃষককে সাবধান হতে হবে। দেশের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং যানবাহনের ইন্সুরেন্স রয়েছে, কিন্তু কৃষির কোন ফসলেরই ইন্সুরেন্স নেই। বক্তারা আরও বলেন, কৃষিজাত সকল ফসলের ইন্সুরেন্স হওয়া প্রয়োজন রয়েছে। কৃষির উৎপাদিত ফসলের সঠিক মূল্য না পাওয়াতে ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে অনেক কৃষক তা পরিশোধ করতে পারছেন না। ব্যাংকের সুদ মওকুফ করে নতুন ভাবে ঋন দিয়ে খামার পরিচালনার জন্য সভা থেকে বক্তারা সরকারের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন। সভা শেষে পুরাতন কমিটি বিলুপ্ত করে ছিদ্দিকুর রহমান ময়েজকে সভাপতি কিতাব মন্ডলকে সাধারন সম্পাদক ও নিজাম উদ্দিনকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে নতুন কমিটি ঘোষনা করা হয়।