কুমারখালীতে লালবাবুর হরিজন পল্লী মাদক বিক্রির আখড়া!

0
136

কুষ্টিয়া অফিস, গড়াইনিউজ২৪.কম:: কুমারখালী উপজেলার হরিজন পল্লীতে দীর্ঘদিন যাবত হরিজন লালবাবু বাংলা মদসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক বিভিন্ন বয়সীদের হাতে তুলে দিলেও এখনো পর্যন্ত সে রয়েছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। সরেজমিন তদন্তে গেলে দেখা যায় ১২ থেকে ১৩ বছরের কিশোর থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী মাদক সেবীদের ভীড় হরিজন পল্লীতে। সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদকসেবীরা দৌড়ে পালিয়ে যায় এবং লালবাবু তার ঘরের দরজা তালা বন্ধ করে সটকে পড়ে। একজন কার্ডধারি ব্যক্তি মাসে সাড়ে ৯ লিটার বাংলা মদ ক্রয় করার এখতিয়ার রাখে। তাহলে হরিজন লালবাবু কিভাবে প্রতিদিন কমপক্ষে ৫০ লিটার মদ ক্রয় করে বিক্রি করে এমন প্রশ্নের জবাবে কুমারখালী বাংলা মদের ডিলার লাইসেন্সধারী হরি জানান সে সঠিকভাবে খোঁজখবর রাখে না যে কারণে একই ব্যক্তি কিভাবে এতো মদ পাচ্ছে সেটা তার জানা নেই। এদিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় হরিজন লালবাবু বাংলা মদ ক্রয় করে অতিরিক্ত পানি মেশানোর পর নেশা বৃদ্ধি করার জন্য ইউরিয়া সার ও এসিডের পানি ব্যবহার করছে। একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার জানান যারা এই ইউরিয়া সার ও এসিডের পানি মিশ্রিত মদ নিয়মিত পান করবে তাদের লিভার অচিরেই পচে যাবে। মাদক বিক্রেতা হরিজন লালবাবু কে মাদক বিক্রির বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে সে সম্পূর্ণ অস্বীকার করে।
কুমারখালী হরিজন পল্লী শহর ঘেঁষে হবার কারণে হরিজন পল্লীর সম্মুখভাগে একাধিক দোকান রয়েছে। বিগত কয়েকদিন পূর্বে মাদক ক্রয় করতে এসে দু গ্রæপের মধ্যে সংঘর্ষের কারণে মাদকসেবীরা স্থানীয় দোকানদারদের গায়ে হাত তুলে। এ ব্যাপারে দোকান মালিক সমিতির পক্ষ থেকে কুমারখালী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। দ্রæতগতিতে কিশোর থেকে যুবকদের মাদকের ভয়াল গ্রাস থেকে রক্ষা করার জন্য থানা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।

একটি উত্তর ত্যাগ