ল্যাব ইনচার্জ তালাশ মাহামুদ সুযোগ পেলেই কুপ্রস্তাব দেন সনোর মেয়েদের!

0
322
সনো ডায়গনষ্টিক এন্ড হাসপাতালের ল্যাব ইনচার্জ তালাশ মাহামুদ সুযোগ পেলেই চাকুরী প্রত্যাশী নারীদের কুপ্রস্তাব করেন

গড়াইনিউজ২৪.কম:: সনো ডায়গনষ্টিক সেন্টার এন্ড হসপিটালের ল্যাব ইনচার্জ তালাশ মাহামুদের চরিত্রে স্খলনের অভিযোগ উঠেছে। সনো ডায়গনষ্টিক এন্ড হাসপাতালের ল্যাব ইনচার্জ তালাশ মাহামুদ সুযোগ পেলেই চাকুরী প্রত্যাশী নারীদের কুপ্রস্তাব করেন বলে জানা গেছে। একাধিক নারীকে কুপ্রস্তাবের চিত্র ম্যাসেঞ্জারের স্কীন শটে উঠে এসেছে। তবে এব্যাপারে তালাশ মাহামুদ বলেছেন হাসপাতাল কর্ত্তৃপক্ষ তাকে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে নিষেধ করেছেন। জানা যায়, কুষ্টিয়ার একটি মেডিকেল টেকনোলজি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ছিলেন তালাশ মাহামুদ। সেখান থেকে যেসকল শিক্ষার্থী পড়ালেখা শেষ করেছেন তাদের অনেকেই কুষ্টিয়ার বিভিন্ন ডায়গনষ্টিক সেন্টার ও হাসপাতালে চাকুরী করেন। তালাশ মাহামুদ বর্তমানে কুষ্টিয়ার সবচেয়ে বড় ডায়গনষ্টিক সেন্টার সনোতে ল্যাব ইনচার্জ হিসেবে আছেন। তার কাছে চাকুরীর জন্য কোন সাবেক শিক্ষার্থী গেলে তিনি তাদের কুপ্রস্তাব দিয়ে থাকেন। শুধু তা নয় তার সহকর্মীদের কুপ্রস্তাব করার অভিযোগ রয়েছে তালাশ মাহামুদের বিরুদ্ধে। স্কীন শট সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালে তার এক ছাত্রী চাকুরীর জন্য তার কাছে আবেদন করলে তিনি সেই শিক্ষার্থীকে মধ্যান্ন ভোজের জন্য আমন্ত্রণ জানান। ওই ছাত্রী তাতে বিব্রত হলে চির দিনের জন্য ওই প্রতিষ্ঠানে তার চাকুরীর দ্বার বন্ধ হয়ে যায়। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তালাশ মাহামুদের বাড়ি নওগায়। তিনি সনোতে দীর্ঘ ৭ বছর যাবৎ চাকুরী করছেন। ইতিপূর্বে তার বিরুদ্ধে এই ধরণের অভিযোগ উঠলেও টাকার বিনিময়ে বিষয়গুলি ম্যানেজ করেছেন। এব্যাপারে সনো হাসপাতাল এন্ড ডায়গনষ্টিক সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালন সামসুল ওয়াসের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলে আমার কাছে এমন কোন অভিযোগ আসেনি। সনো কুষ্টিয়ার মানুষের কাছে একটি আস্থার জায়গা। দীর্ঘ পরিক্রমায় সনো ডায়গনষ্টিক সেন্টার এন্ড হাসপিটাল এই জায়গা তৈরী করেছে। কোন খারাপ লোকের জন্য আমার প্রতিষ্ঠানের সুনাম নষ্ট করার কোন সুযোগ নেই। অভিযোগ পেলে যদি তার প্রমান হয় অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ