টিউমার অপারেশন করতে গিয়ে শ্বাসনালী কাটলেন হাসপাতাল মালিকপুত্র

0
268

গড়াই নিউজ ২৪.কম:: রংপুর মহানগরীর নর্দান প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাাতলে টিউমার অপারেশন করতে গিয়ে শ্বাসনালী কেটে দেয়ায় ইব্রাহিম (৭০) নামে রাজমিস্ত্রীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনার পর মৃতের পরিবারকে দেড় লাখ টাকা ক্ষতিপুরণও দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ধাপ পুলিশ ফাঁড়ি পুলিশের সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আল আমিন জানান, রংপুর নগরীর সিট কেল্লাবন্দ এলাকার বাসিন্দা ইব্রাহিম মিয়া (৭০) মেডিক্যাল পুর্বেগেট এলাকায় অবস্থিত নর্দান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে টিউমার অপারেশনের জন্য যান মঙ্গলবার সকালে। দুপুরে তার ওপারেশন করান হাসাপাতালটির মালিক ডা. জহুরুল ইসলামের পুত্র রোকনুজ্জামান পাভেল। অপারেশনের কিছুক্ষণের মধ্যে প্রচুর রক্তক্ষরণের কারণে তার মৃত্যু হলে নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী হাসপাতালে ভিড় জমিয়ে বিক্ষোভ করে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরে আমরা সেখানে যাই। এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। নিহত ইব্রাহিমের ছোট পুত্র রুবেল সাংবাদিকদের জানান, নর্দান প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের কর্মচারী মনিকের মাধ্যমে আমার পিতাকে টিউমার অপারেশনের জন্য ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে ডা. জহুরুল হকের ছেলে ডা. রোকনুজ্জামান পাভেল অপারেশন করেন। পরে রোগী জ্ঞান না ফিরে না আসায় প্রচৃর রক্তক্ষরণে তিনি মারা যান। আমার পিতার এভাবে মৃত্যুর খবর পাওয়া মাত্রই হাসপাতালে এর প্রতিবাদ করতে গেলে রোগীকে অপারেশন থিয়েটারে রেখেই চিকিৎসক, নার্সসহ সবাই পালিয়ে যান। তিনি অভিযোগ করে বলেন, চিকিৎসক আমার বাবার টিউমার অপারেশন করতে গিয়ে গলার শ্বাসনালী কেটে ফেলেছেন। এতে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে এবং তার মৃত্যু হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা ওই হাসাপাতালে গিয়ে এর প্রতিবাদ জানাই। পরে পুলিশও আসে। এক পর্যায়ে তারা আমাদেরকে ক্ষতিপুরণ হিসেবে দেড় লাখ টাকার একটি চেক দেয়। রাত ১০ টায় আমরা বাবাকে দাফন করি। তিনি বলেন, এভাবে অপারেশনের নামে রোগীকে পশু কাটার মতো মেরে ফেলা হচ্ছে। নর্দান প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ ও হসপিটালের ম্যানেজার হামিদুল ইসলাম জানান, মেট্রোপলিটনের তিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে বিষয়টি সমাধান করা হয়েছে। তিনি বলেন, হাসপাতালের কর্মচারি মানিক ও নিহতের বড় ছেলে হাসানের মাধ্যমে ইব্রাহিমকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়। তিনি বলেন, আগে থেকে রোগী অসুস্থ্ ছিল। তিনি এ বিষয়ে হাসপাতালে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। নিহতের বড় পুত্র হাসান জানান, আমরা আমাদের পিতাকে এভাবে হারাবো তা ভাবতে পারিনি। ওই ক্লিনিকে আমাদের পরিবারসহ অনেক আত্মীয় স্বজন কাজ করে। এছাড়াও পারিপার্শ্বিক চাপের কারণে বিষয়টি আমরা সমঝোতা করেছি। আমার বৃদ্ধ মায়ের জন্য অপারেশন চিকিৎসক রোকনুজ্জামান পাভেল তার ইস্টার্ন ব্যাংকের একাউন্টের দেড় লাখ টাকার চেক ক্ষতিপুরণ হিসেবে দিয়েছেন। স্থানীয় কাউন্সিরসহ মিডিয়া কর্মীরাও তখন উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, এভাবে যেন আর কাউকে মরতে না হয়, সে ব্পাোরে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে।। স্থানীয় কাউন্সিলর আমিনুর রহমান জানান, ভুল অপারেশনের কারণেই রোগীর মৃত্যু হয়েছে। তবে বিষয়টি হাসাপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং মৃতের স্বজনদের মধ্যে সমঝোতা হয়েছে। নর্দান প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডা. লাভলী জানান, এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রোগীর স্বজনদের দেড় লাখ টাকা দেয়া হয়েছে। পুলিশ ও সংবাদকর্মীদের উপস্থিতিতে বিষয়টি সমাধান করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ