ইবির ‘এফ’ ইউনিটে ভর্তি বাতিলরাও ভর্তি হতে পারবেন

0
401

গড়াইনিউজ২৪.কম:: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের প্রথমবর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদভুক্ত ‘এফ’ ইউনিটে ভর্তি বাতিলকৃত শিক্ষার্থীরা আবার ভর্তি হতে পারবেন। আগামী ১৫ জানুয়ারি হতে ২১ জানুয়ারির মধ্যে অফিস চলাকালে সংশ্লিষ্ট বিভাগ হতে নির্ধারিত ভর্তির আবেদন ফরম সংগ্রহ করে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দপ্তর থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, হাইকোর্ট বিভাগে দায়েরকৃত রিট পিটিশন এবং আপিল বিভাগে দায়েরকৃত সিভিল আপিলের আদেশ মোতাবেক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবেন ভর্তি বাতিলকৃত ছাত্রছাত্রীরা। ‘এফ’ ইউনিটভুক্ত পরিসংখ্যান ও গণিত বিভাগে ভর্তিকৃত ও পরবর্তীতে ভর্তি বাতিলকৃত ছাত্র-ছাত্রীরা একই শিক্ষাবর্ষে ২য় বার অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। যেসব ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়ে ভর্তি হয়েছেন, তারা ছাড়া ওই শিক্ষাবর্ষের অবশিষ্ট ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সংশ্লিষ্ট বিভাগে ভর্তির অনুমতি দেয়া হলো।হাইকোর্ট বিভাগ ও আপিল বিভাগ-এর সংশ্লিষ্ট মামলার রায়ের নির্দেশনা মোতাবেক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। প্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে জড়িত প্রকৃত দোষী ব্যক্তি চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদভুক্ত ‘এফ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২০১৬ সালের ৭ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। এর পর ২০১৭ সালের ১৬ জানুয়ারি ১০০ শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের এফ ইউনিটভুক্ত গণিত ও পরিসংখ্যান বিভাগে ভর্তি হন। একই বছরের ৬ মার্চ প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট ১০০ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল করে। সিন্ডিকেট সিদ্ধান্তের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ৮৮ শিক্ষার্থী হাইকোর্টে রিট করেন। এ রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ১৩ মার্চ হাইকোর্ট সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে রুল জারি করেন। একই সাথে পুনরায় ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করে পরীক্ষার ফল হাইকোর্টে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। ১৬ মার্চ নতুন করে ভর্তিপরীক্ষা গ্রহণ করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। দ্বিতীয়বারে ভর্তির সুযোগ পাওয়া শিক্ষার্থীদের ভর্তি করে প্রশাসন। ১৭ মার্চ হাইকোর্ট প্রথমবার ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের ভর্তি বৈধ এবং সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন। তবে আপিলের রায়েও হেরে যায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এতে ওই বিভাগ দুটিতে দুইবার অনুষ্ঠিত হওয়া ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সকল শিক্ষার্থীই ভর্তির সুযোগ পাচ্ছেন। শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে প্রথমে ভর্তি বাতিলকৃত শিক্ষার্থীদের ভর্তির অনুমতি দেযা হলো।

গড়াইনিউজ২৪.কম/মিরাজুল ইসলাম

একটি উত্তর ত্যাগ