কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসকের মোবাইল নাম্বার ক্লোন করে প্রতারনা!

0
2216

কুষ্টিয়া অফিস:: কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসকের (ডিসি) সরকারি মুঠোফোন নম্বরের হুবহু নম্বর তৈরি করে (ক্লোন) জেলার মিরপুর, কুমারখালী ও খোকসা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানদের ফোন করে  টাকা চাওয়া হয়। একইভাবে খোকসা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) মুঠোফোন নম্বর ক্লোন করে উপজেলার নয়টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে ফোন করে টাকা চাওয়া হয়।

চেয়ারম্যান সাহেব, আমি ডিসি বলছি। আপনার নামে ৫০০ টন টিআর, কাবিখার বিশেষ বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে। এ জন্য আপনি দ্রুত আমার নম্বরে বিকাশ করে কয়েক হাজার টাকা পাঠান। দ্রুত করুন।’ উপজেলা চেয়ারম্যানদের কারও কারও সন্দেহ হলে তাঁরা ডিসিকে ফোন করেন। ডিসি জহির রায়হান বলেন, এ ধরনের ফোন কাউকে দেওয়া হয়নি। দেওয়ার প্রশ্নই আসে না। আর খোকসার ইউএনওর নম্বর ক্লোন করে ফোন করার বিষয়টি তাৎক্ষণিক ধরা পড়ে। কারণ, ফোনটি করেন একজন পুরুষ। আসলে এখানকার ইউএনও নারী। তাঁর নাম রেবেকা খান।
জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, বিষয়টি জানার সঙ্গে সঙ্গে সংশ্লিষ্ট মুঠোফোন প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা জানায়, ওই নম্বরের কোনো সিমকার্ড প্রতিস্থাপন (রিপ্লেস) করা হয়নি। বরং এটা ক্লোন করে কোনো চক্র প্রতারণা করার চেষ্টা করছে। গত ২১ সেপ্টেম্বর জহির রায়হান জেলা প্রশাসক হিসেবে কুষ্টিয়ায় যোগ দেন। তিনি বলেন, বিষয়টি র্যা ব ও পুলিশের গোয়েন্দা সংস্থাসহ বিভাগীয় কমিশনার ও সরকারের উচ্চপর্যায়ে জানানো হয়েছে। যেসব নম্বরে বিকাশ করার কথা বলা হয়েছে সেগুলো দেওয়া হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, খুব দ্রুত চক্রটিকে ধরা যাবে।
খোকসার ইউএনও রেবেকা খান বলেন, গত রোববার থেকে গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত তাঁর ব্যবহৃত নম্বর ক্লোন করে ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন মানুষকে ফোন করে প্রতারণার চেষ্টা করা হয়। এ ধরনের ফোন পেলে সরাসরি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করেন ইউএনও। কুষ্টিয়া র্যা ব ক্যাম্পের কমান্ডার মোসাদ্দেক ইবনে মুজিব ও জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ছাব্বিরুল আলম জানান, বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। চক্রটিকে ধরতে ইতিমধ্যে কাজ শুরু করা হয়েছে।